আওয়ামী লীগ সরকারকে হুমকি দিয়ে লাভ নেই: বাণিজ্যমন্ত্রী

0
9

 জেলা প্রতিনিধি,পিপল নিউজ২৪ডটকম

“আওয়ামী লীগ সরকারকে হুমকি-ধমকি দিয়ে কোনো লাভ নেই। বিএনপি নেতারা যে যত কথাই বলুক, বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারের অধীনে নির্বাচনে আসা ছাড়া বিএনপির আর কোনো  বিকল্প নেই।

শুক্রবার সকালে ভোলার লালমোহন উপজেলার ধলীগৌর নগর ইউনিয়নের আ. হান্নান মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে আ. হান্নান হাওলাদার শিক্ষাবৃত্তি অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ।

মন্ত্রী বলেন, “যে দল ২০১৩, ২০১৪ ও ২০১৫ সালের মতো সন্ত্রাসী কার্যকলাপ করে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। বিএনপি ক্ষমতায় আসলে ২০০১ সালের চেয়েও অনেক ভয়াবহ হবে। ” তিনি বলেন, “আগামীতে আওয়ামী লীগ রাষ্ট্র ক্ষমতায় আসবে। কারণ আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলেই এ দেশে উন্নয়ন হয়। স্বাস্থ্যসেবা মানুষের দোড় গোড়ায় পৌঁছে দিতে আওয়ামী লীগ সরকার কমিউনিটি ক্লিনিক চালু করেছিল। আর বিএনপি ক্ষমতায় এসে তা বাতিল করেছে। এ সরকারের আমলে গ্রামও অনেক উন্নত হয়েছে। মানুষের ক্রয় ক্ষমতা বেড়েছে।

ভোলায় নদীভাঙন প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, “ভোলাকে নদীভাঙনের হাত থেকে রক্ষা করা হবে। এ জন্য প্রায় ১৮০০ কোটি টাকার কাজ হচ্ছে। অথচ বিএনপি আমলে শুধু লুটপাট হয়েছে। ভোলার নেতা পানিসম্পদ মন্ত্রী থাকার পরও কোনো কাজ হয়নি। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আছে বিধায় বাংলাদেশ এখন বিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল। আর এ দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বের ১৭৩টি উন্নত দেশের মধ্যে তৃতীয়। তিনি রোহিঙ্গাদের বুকে টেনে নিয়ে মানবতার পরিচয় দিয়েছেন। তাই শেখ হাসিনাকে বলা হচ্ছে মনবতার মা। তিনি আন্তর্জাতিক বিশ্বেও সুনাম অর্জন করেছেন। শুধু খুশি হননি খালেদা জিয়া। যে দল শুধু জ্বালাও-পোড়াও রাজনীতি করেছে। এখন কোর্টে গিয়ে বলেন তিনি নির্দোষ। ”

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, “বিএনপির আমলে হাওয়া ভবনের মাধ্যমে লুটপাট করেছে। মানি লন্ডরিং করেছে। তাই তারেক রহমানের বিরুদ্ধে বিচার হচ্ছে। তার বন্ধু গিয়াস উদ্দিন আল-মামুন এখনো জেলে রয়েছেন। ” তাদের বিরুদ্ধে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, “ভোলায় পর্যাপ্ত পরিমাণ গ্যাস রয়েছে। সেই গ্যাস দিয়ে গ্যাসভিত্তিক শিল্প, কল-কারখানা স্থাপন করা হবে। এ জন্য ইতিমধ্যে এখানে ২০৮ একর জমি বন্দোবস্ত নেওয়া হয়েছে। তখন ভোলা হবে একটি উন্নত শিল্পনগরী জেলা। ২০২১ সালের মধ্যে দেশে ২৪ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন হবে। ”

 

সমিতির সভাপতি ড. মাকসুদ হেলালীর সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক শহিদুল হক মুকুল মোল্লা প্রমুখ। অনুষ্ঠানের আগে প্রধান অতিথি তোফায়েল আহমেদ সুলতান আহমেদ হাওলাদার লাইব্রেরি ও আ. ওহাব হাওলাদার মিলনায়তনের নামফলক উন্মোচন করেন। অনুষ্ঠানে এসএসসি ও এইচএসসির ১২০ মেধাবী শিক্ষার্থীকে শিক্ষাবৃত্তি দেওয়া হয়।

NO COMMENTS