তাসকিনের নিষেধাজ্ঞা বহাল, আপিল খারিজ

0
144
পিপলনিউজ প্রতিবেদক:
বাংলাদেশের তরুণ পেসার তাসকিন আহমেদের বোলিং নিষেধাজ্ঞা বহাল রেখেছে আইসিসি। বাঙ্গালোরোর রিটজ-কার্লটন হোটেলে মঙ্গলবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ রিভিউ (পুনর্বিবেচনা) আবেদনের শুনানি হয়।
বুধবার আইসিসির ওয়েবসাইটে দেয়া এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, রিভিউ শুনানি শেষে আইসিসির বিচারিক কমিশনার তাসকিনের নিষেধাজ্ঞা বহাল রাখেন।

গত সোমবার তাসকিনের নিষেধাজ্ঞার সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারে আইসিসির কাছে রিভিউ আবেদন করেছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

আবেদনে বিসিবি দাবি করে, প্রয়োজনীয় ধাপগুলো অনুসরণ না করেই তাসকিনকে বোলিং অ্যাকশন পরীক্ষায় পাঠিয়েছিল আইসিসি।

একে প্রক্রিয়াগত ত্রুটি আখ্যা দিয়ে তাসকিনের বোলিং অ্যাকশন নিষিদ্ধের সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার দাবি জানায় বিসিবি।

রিভিউ আবেদনের আগে রোববার বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছিলেন, তাসকিনের নিষেধাজ্ঞা নিয়ে সন্তুষ্ট নয় বিসিবি। তার নিষেধাজ্ঞার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার আশ্বাস দিয়েছে আইসিসি। আশা করি, খুব শিগগিরই মাঠে ফিরবে সে।

তাসকিনকে ফেরাতে আইসিসি চেয়ারম্যান শশাঙ্ক মনোহর ও প্রধান নির্বাহী ডেভ রিচার্ডসনের সঙ্গে ব্যক্তিগতভাবে যোগাযোগ করেন বলেও জানিয়েছিলেন বিসিবি সভাপতি।

গত ৯ মার্চ ধর্মশালায় নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে টি ২০ বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচের পরই তাসকিন ও সানির বোলিং অ্যাকশন নিয়ে আম্পায়াররা সন্দেহ পোষণ করেন।

এরপর গত ১৫ মার্চ চেন্নাইয়ের আইসিসি অনুমোদিত ল্যাবে বায়ো-মেকানিক্যাল পরীক্ষা দেন তাসকিন ও আরাফাত সানি।পরে তাদের আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে সাময়িক নিষিদ্ধ করা হয়।

ক্রিকেটের নিয়ম অনুযায়ী বল ডেলিভারির সময় কনুই ১৫ ডিগ্রির বেশি বাঁকানো যায় না। কিন্তু তাসকিন ও সানি দুজনের কনুই-ই নাকি সেই সীমা অতিক্রম করে গেছে বলে দাবি আইসিসির।

সংস্থাটি জানায়, আরাফাত সানির বেশির ভাগ ডেলিভারির সময়ই কনুই বেঁকে গেছে ১৫ ডিগ্রির বেশি। আর তাসকিনের কিছু ডেলিভারি বৈধ হলেও কিছু ক্ষেত্রে তার কনুইও ১৫ ডিগ্রির বেশি বেঁকে গেছে।

আইসিসির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, তাসকিন ও সানি বোলিং অ্যাকশন শুধরে না নেওয়া পর্যন্ত ক্রিকেটের আর কোনো আন্তর্জাতিক আসরে খেলতে পারবেন না।

এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে করা আপিল খারিজ হয়ে যাওয়ায় আজ বুধবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাঙ্গালোরে ভারত ও শনিবার ইডেন গার্ডেনে নিউজিল্যান্ডের  বিপক্ষে খেলতে পারবেন না তাসকিন।

আইসিসির অনুমোদিত পরীক্ষাগারে ফের পরীক্ষা দিয়ে উত্তীর্ণ হতে পারলে তাসকিন ও সানি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরতে পারবেন।

তবে কোনো টুর্নামেন্টের মাঝখানে আইসিসির এ সিদ্ধান্তের যথার্থতা নিয়ে বড়সর প্রশ্ন রয়েছে বাংলাদেশের কোটি ক্রিকেট অনুরাগীর মধ্যে।

এছাড়াও তাসকিনের বিরুদ্ধে আইসিসির নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে দেশ-বিদেশের ক্রিকেটবোদ্ধারাও ব্যাপক প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন।

অস্ট্রেলিয়ার কিংবদন্তি ক্রিকেটার ইয়ান চ্যাপেল বলেন, টুর্নামেন্টের মাঝপথে বাংলাদেশের দুই গুরুত্বপূর্ণ বোলারের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা অযৌক্তিক।

অস্ট্রেলিয়ার সাবেক এই অধিনায়ক বলেন, ‘তাসকিন আহমেদ ও আরাফাত সানি টুর্নামেন্টের মাঝপথ থেকে ছিটকে পড়লেন। এটা না করে টুর্নামেন্টের শুরুর আগেই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া যেত।’

ক্রিকইনফোর এই ক্রিকেট বিশ্লেষক বলেন, ‘আমার মনে হয় না, এর কোনো যৌক্তিকতা আছে। টুর্নামেন্টের মধ্যপথ থেকে বাদ দেয়া অত্যন্ত রূঢ়

সোমবার টুইটে পাকিস্তানের সাবেক পেসার শোয়েব আখতার বলেন, সত্যিই তাসকিনকে খুব অনুভব করছি। ওর জন্য খারাপ লাগছে। তবে আমার আশা খুব শিগগিরই ও আইসিসির ছাড়পত্র পাবে। তাসকিনকে ক্রিকেট বিশ্বের বড় সম্পদ বলেও অভিহিত করেন শোয়েব।

NO COMMENTS